মোট নদ-নদী- প্রায় ৭০০টি (তথ্যসূত্র : www.banglapedia.org)

                         প্রায় ৮০০টি (তথ্যসূত্র : www.wikipedia.org)

                         প্রচলিত তথ্য- ২৩০টি

নদ-নদীর মোট আয়তন – ২৪,১৪০ কিমি (তথ্যসূত্র : www.banglapedia.org)

ভারত থেকে বাংলাদেশে আসা নদী- ৫৫টি

মায়ানমার থেকে বাংলাদেশে আসা নদী- ৩টি

বাংলাদেশের আন্তর্জাতিক নদী- ১টি (পদ্মা)

মোট আন্তঃসীমান্ত নদী- ৫৮টি

বাংলাদেশ থেকে ভারতে যাওয়া নদী- ১টি (কুলিখ)

বাংলাদেশে উৎপত্তি ও সমাপ্তি এমন নদী- ২টি (হালদা ও সাঙ্গু)

বাংলাদেশ থেকে ভারতে গিয়ে আবার বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে- আত্রাই

বাংলাদেশ ও মায়ানমারকে বিভক্তকারী নদী- নাফ

বাংলাদেশ ও ভারতকে বিভক্তকারী নদী- হাড়িয়াভাঙ্গা

হাড়িয়াভাঙ্গার মোহনায় অবস্থিত- দক্ষিণ তালপট্টি দ্বীপ (ভারতে নাম পূর্বাশা, এই দ্বীপের মালিকানা নিয়ে বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে দ্বন্দ্ব চলছে।)

 

প্রধান নদী- পদ্মা

দীর্ঘতম নদী- সুরমা (৩৯৯কিমি)

দীর্ঘতম নদ- ব্রহ্মপুত্র (একমাত্র নদ) (দীর্ঘতম নদীর উত্তরে ব্রহ্মপুত্র থাকলে ব্রহ্মপুত্র-ই উত্তর হবে)

প্রশস্ততম নদী- যমুনা

সবচেয়ে খরস্রোতা নদী- কর্ণফুলী

 

বাংলাদেশের একমাত্র আন্তর্জাতিক নদী- পদ্মা

চলন বিলের মধ্য দিয় প্রবাহিত নদী- আত্রাই

জোয়ার-ভাঁটা হয় না- গোমতী নদীতে

প্রাকৃতিক মৎস্য প্রজনন কেন্দ্র- হালদা নদী

বাংলাদেশ ও মায়ানমারকে বিভক্তকারী নদী- নাফ

বাংলাদেশ ও ভারতকে বিভক্তকারী নদী- হাড়িয়াভাঙ্গা

বাংলাদেশ থেকে ভারতে গিয়ে আবার বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে- আত্রাই

বরাক নদী বাংলাদেশে ঢুকেছে- সুরমা হয়ে (পরে মেঘনায় গিয়ে মিশেছে)

যমুনার সৃষ্টি হয়- ১৭৮৭ সালের ভূমিকম্পে

 

বিভিন্ন নদীর পূর্বনাম

বর্তমান নাম

পূর্বনাম

যমুনা

জোনাই নদী

বুড়িগঙ্গা

দোলাই নদী (দোলাই খাল)

ব্রহ্মপুত্র

লৌহিত্য

পদ্মা

কীর্তিনাশা

নদী সিকস্তি- নদী ভাঙনে সর্বস্বান্ত

নদী পয়স্তি- নদীর চরে যারা চাষাবাদ করে

ফারাক্কা বাঁধ- গঙ্গা নদীর উপরে (বাংলাদেশে এসে গঙ্গা ‘পদ্মা’ নাম নিয়েছে)

বাকল্যান্ড বাঁধ- বুড়িগঙ্গার তীরে (১৮৬৪ সালে নির্মিত)

টিপাইমুখ বাঁধ- বরাক নদীর উপরে (ভারতের মণিপুর রাজ্যে)

কাপ্তাই জলবিদ্যুৎ কেন্দ্র- কর্ণফুলী নদীর উপর (১৯৬২ সালে নির্মিত)

চট্টগ্রাম বন্দর- কর্ণফুলী নদীর তীরে

মংলা (খুলনা) বন্দর- পশুর নদীর তীরে

মাওয়া ফেরিঘাট- পদ্মার তীরে

প্রধান নদীবন্দর- নারায়ণগঞ্জ

নদী গবেষণা ইন্সটিটউট- ফরিদপুর

নদী উন্নয়ন বোর্ড- ঢাকায়

বিভিন্ন নদীর উৎপত্তিস্থল-

নদী

উৎপত্তিস্থল

পদ্মা

হিমালয়ের গঙ্গৌত্রি হিমবাহ

ব্রহ্মপুত্র

তিব্বতের মানস সরোবর

যমুনা

তিব্বতের মানস সরোবার

মেঘনা

আসামের লুসাই পাহাড়

কর্ণফুলী

মিজোরামের লুসাই পাহাড়

বিভিন্ন নদীর মিলিতস্থল-

পদ্মা

+

মেঘনা

চাঁদপুর

পদ্মা

+

যমুনা

গোয়ালন্দ

সুরমা

+

কুশিয়ারা

ভৈরব (আজমিরীগঞ্জ)

পুরাতন ব্রহ্মপুত্র

+

মেঘনা

ভৈরব বাজার

নদী তীরবর্তী শহর ও গুরুত্বপূর্ণ/ঐতিহাসিক জায়গা-

শহর / জায়গা

নদী

শহর / জায়গা

নদী

ঢাকা

বুড়িগঙ্গা

সিলেট

সুরমা

চট্টগ্রাম

কর্ণফুলী

মাদারীপুর

পদ্মা

কুমিল্লা

গোমতী

বাংলাবান্ধা

মহানন্দা

রাজশাহী

পদ্মা

টেকনাফ

নাফ

মহাস্থানগড়

করতোয়া

বগুড়া

করতোয়া

বরিশাল

কীর্তনখোলা

চন্দ্রঘোনা

কর্ণফুলী

খুলনা

রূপসা

কাপ্তাই

কর্ণফুলী

টঙ্গী

তুরাগ

গোপালগঞ্জ

মধুমতী

চাঁদপুর

মেঘনা

ঘোড়াশাল

শীতলক্ষ্যা

গাজীপুর

তুরাগ

টুঙ্গীপাড়া

মধুমতি

সুনামগঞ্জ

সুরমা

লালবাগ কেল্লা

বুড়িগঙ্গা

মংলা

পশুর

শরীয়তপুর

পদ্মা

ভৈরব

মেঘনা

রাজবাড়ি

পদ্মা

রংপুর

তিস্তা

নোয়াখালি

মেঘনা ও ডাকাতিয়া

টাঙ্গাইল

যমুনা

মানিকগঞ্জ

যমুনা

পঞ্চগড়

করতোয়া

নরসিংদী

মেঘনা ও শীতলক্ষ্যা

কক্সবাজার

নাফ

ব্রাহ্মণবাড়িয়া

তিতাস

নাটোর

আত্রাই

রংপুর

তিস্তা

দৌলতদিয়া

পদ্মা

গোয়ালন্দ

পদ্মা

কুষ্টিয়া

গড়াই

তিনবিঘা করিডোর

তিস্তা

কুইজ